মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

ভাষা ও সংষ্কৃতি

উপজেলারঐতিহ্য

ঐতিহ্য :এই উপজেলার ইতিহাস অতি প্রাচীন । কালক্রমে সমুদ্রে নিমজ্জিত ভূমিতে  পলি ভরাটের কারনে সৃষ্টি হয়েছে বিশাল এক ভু-খন্ড। ইতিহাস বিষয়ে ও ঐতিহাসিক ঘটনা পুজ্ঞির জন্য অনেক পূর্বসূত্র সম্পন্ন প্রতিষ্ঠান অত্র উপজেলালায় নেই। ঐতিহ্যের স্থান কাল পত্র ভেদে একটা পূর্ব সূত্রতার অবশ্যই প্রয়োজন আছে । উদাহারন স্বরূপ বলা যায় জাহাঙ্গীর নগর ইউনিয়নে পুরাতন গুদিগাঁও একটি প্রাচীন মসজিদের ভগনাংশেষ দেখা যায় । এ মসজিদের সূত্র ধরলে এখানে মুসলিম সভ্যতার একটি সুবর্ন দিক বা ঐতিহ্যের সন্ধান মেলে । এছাড়া   বিভিন্ন স্থানে প্রাচীন মন্দিরের ভগ্নাবস্থা বিশ্লেষণ করলে ঐতিহের সূত্র  পাওয়া যেতে পারে।

 

 

 

ভাষা ও সংস্কৃতি

সাংস্কৃতিকঃ- এ ক্ষেত্রে সদর উপজেলার একটি আলাদা বৈশিষ্ট্য রয়েছে । সাংস্কৃতিক চর্চা এখানে একটু বেশী হয় কেননা জেলা সদরে সাংস্কৃতিক অংগনে নামী-দামী  শিল্পী সাহিত্যিকরা বসবাস করেন । সুনামগঞ্জের সাংস্কৃতিক অঙ্গনে রয়েছে হিন্দু ও মুসলিম উভয় সম্প্রদায়ের যৌথ প্রয়াস ও প্রচেষ্টার এক সমৃদ্ধ ফলন । এছাড়া সুনামগঞ্জের পল্লী ও লোক সাংস্কৃতিক অসংখ্য আউল-বাউল ফকির দরবেশ, বৈষ্ণবদের মতবাদ যা পরমেশ্বরের সন্ধান পেতে সাহায্য করে।  উদাহরনস্বরূপ বলা যায়, দেওয়ান হাছন রাজা যাঁর রচিত আধ্যাতিক সংগীতকে কেন্দ্র করে, দেশের তথা সুনামগঞ্জের বহু শিল্পী প্রসিদ্ধি লাভ করেছেন । যা অন্যান্য উপজেলা হতে সম্পুর্ন ভিন্ন। মরমী গানের এক উর্বরাময় ভুমি হচ্ছে এই জেলা । ফলে এখানে গানের চর্চাও হয় বেশী বেশী ।